Notice :
আমাদের সাইটে আপনাদের স্বাগতম
লাউয়ের চেয়ে কিন্তু লাউ শাক অনেক বেশি পুষ্টিকর

লাউয়ের চেয়ে কিন্তু লাউ শাক অনেক বেশি পুষ্টিকর

লাউ আমাদের অনেকের পরিচিত একটি সবজি।  এটি খেতেও বেশ সুস্বাদু। কিন্তু সবচেয়ে মজার ব্যাপার হলো লাউয়ের চেয়ে লাউশাকে পুষ্টিগুণ বেশি। শুনে হয়তো অনেকেই অবাক হচ্ছেন, কিন্তু অবাক হলেও একথা সত্য যে, লাউয়ের চেয়ে লাউশাকে পুষ্টিগুণ বেশি। আসলে কচি লাউ গাছের ডগা এবং পাতা শাক হিসেবে খাওয়া হয়ে থাকে। লাউশাক খেতেও কিন্তু অনেক সুস্বাদু। আসুন জেনে নিই এই লাউশাকের পুষ্টিগুণ এবং উপকারীতা সম্পর্কে।

পুষ্টিগুণঃ

মজার একটি ব্যাপার হলো লাউয়ের চেয়ে কিন্তু লাউ শাকে অনেক বেশি পুষ্টি পাওয়া যায়। লাউ শাকে আছে প্রচুর পরিমাণে আমিষ, ক্যালসিয়াম, ভিটামিন সি ও বিভিন্ন খনিজ উপাদান। দেখা গেছে প্রতি ১০০ গ্রাম লাউ শাকে জলীয় অংশ ৮৭.৯ গ্রাম, আমিষ ২.৩ গ্রাম, শর্করা ৬.১ গ্রাম, ক্যালসিয়াম ৮০ মিলিগ্রাম, আয়রন ৬৭ মিলিগ্রাম, ভিটামিন সি ৯০ মিলিগ্রাম, বিভিন্ন খনিজ উপাদান ৭০ মিলিগ্রাম, খাদ্যশক্তি ৬৬ মিলিগ্রাম, ডায়াটারি ফাইবার  ৩৯ মিলিগ্রাম। এছাড়াও এতে আছে বিটা ক্যারোটিন, লুটেইন এবং জিয়েজ্যান্থিন, রিবোফ্লাবিন, থায়ামিন, নিয়াসিন সহ আরও বিভিন্ন উপকারী সব উপাদান।

উপকারীতাঃ

১। লাউ শাকে আছে প্রচুর ভিটামিন সি। আর আমরা সকলেই জানি ভিটামিন সি আমাদের শরীরের জন্য কতটা উপকারী। ভিটামিন সি আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। এটি আমাদের ত্বক এবং চুলের জন্য অনেক উপকারী। একই সাথে ভিটামিন সি আমাদের দাঁত এবং দাঁতের মাড়ির জন্য ভীষণ উপকারী। এটি আমাদের স্ক্যাভি রোগ থেকে দূরে রাখে। এছাড়াও ভিটামিন-সি ঠান্ডা এবং যে কোন ধরনের সংক্রমণ প্রতিরোধে সাহায্য করে।

২। লাউ শাকে আছে যথেষ্ট পরিমাণে ডায়াটারি ফাইবার বা আঁশ। যা আমাদের কোষ্ঠ্যকাঠিন্যের মত অস্বস্তিকর সমস্যা থেকে রেহাই দিতে সাহায্য করে। এছাড়াও আঁশ সমৃদ্ধ খাবার খেলে আমাদের হজম শক্তি বৃদ্ধি পায়। একই সাথে আঁশ সমৃদ্ধ খাবার দীর্ঘক্ষণ আমাদের পেট ভরিয়ে রাখে। ফলে বার বার খাওয়ার ইচ্ছে হয়। আর এতে আমাদের অতিরিক্ত ওজন বাড়ার সম্ভাবনা একদম কমে যায়।

৩। লাউ শাকে আছে উচ্চ মাত্রায় পটাসিয়াম। যা আমদের শরীরের জন্য অনেক উপকারী।পটাসিয়াম আমাদের দেহের কোষের একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান, যা আমাদের শরীরে তরলের সাম্যাবস্থা বজায় রাখে। একইসাথে এটি আমাদের হৃদ স্পন্দন ও রক্তচাপ স্বাভাবিক রাখে।এছাড়াও প্রচুর ক্যালসিয়াম থাকায় লাউ শাক অস্টিওপোরেসিস এবং অন্যান্য ক্যালসিয়ামের অভাব জনিত রোগের ঝুঁকি কমায়। একইসাথে এতে থাকা ক্যালসিয়াম এবং ম্যাগনেশিয়াম আমাদের হাড় শক্ত ও মজবুত করে।

৪। লাউ শাকে আছে বিটা ক্যারোটিন, লুটেইন এবং জিয়েজ্যান্থিন নামের কিছু গুরুত্বপূর্ণ রাসায়ানিক উপাদান। যা আমাদের দেহের জন্য ভীষণ উপকারী। বিটা ক্যারোটিন আমাদের দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে শক্তিশালী করে তোলে। একই সাথের এটি আমাদের ত্বক এবং চুলের জন্য ভীষণ উপকারী। লুটেইন ও জিয়েজ্যান্থিন চোখের বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধ করে। বিশেষ করে এটি নাইটব্লাইন্ড রোগের আশঙ্কা কমিয়ে থাকে।

৫।  লাউ শাকে ক্যালরি কম থাকে এবং এই শাক কোলেস্টেরল ও ফ্যাট মুক্ত। তাই অতিরিক্ত ওজন কমাতে লাউ শাক অনেক কার্যকরী। একই সাথে লাউ শাক আয়রন সমৃদ্ধ হওয়ায় এটি আমাদের রক্তে হিমোগ্লোবিনের পরিমাণ এবং লোহিত রক্ত কনিকার সংখ্যা বাড়িয়ে রক্ত তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

এখান থেকে শেয়ার দিন

Comments are closed.




© All rights reserved © 2019 agambarta24.com
Design BY NewsTheme