Notice :
আমাদের সাইটে আপনাদের স্বাগতম
শিক্ষার্থীরা ভিসি নাসিরের পদত্যাগে ক্যাম্পাসে আনন্দের বন্যায় ভাসছে

শিক্ষার্থীরা ভিসি নাসিরের পদত্যাগে ক্যাম্পাসে আনন্দের বন্যায় ভাসছে

শিক্ষার্থীদের টানা আন্দোলনের মধ্যেদিয়ে অবশেষে পদত্যাগ করলেন গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) উপাচার্য অধ্যাপক খোন্দকার নাসির উদ্দিন।

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের ১২তম দিনে সোমবার (৩০ সেপ্টেম্বর) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন ভিসি নাসির।

এদিকে ভিসির পদত্যাগের খবর বিকালে ক্যাম্পাসে এসে পৌঁছলে শিক্ষার্থীদের মধ্যে উল্লাস ছড়িয়ে পড়ে এবং আনন্দিত হয়ে রঙের ছড়াছড়িতে মেতে ওঠেন শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীরা জানান, আমাদের আন্দোলন সফল হয়েছে। এই আন্দোলনের দাবি যৌক্তিক ও ন্যায়সঙ্গত। ভিসির পদত্যাগ অন্যায় এবং দুর্নীতির বিরুদ্ধে আন্দোলনের সম্পূর্ণ বিজয়।

শিক্ষার্থীদের ভাষ্য, ভিসি নাসির উদ্দীনের দুর্নীতি, অনিয়ম, স্বৈরাচারী আচরণে বিরুদ্ধে প্রতিবাদই ছিল শিক্ষার্থীদের ন্যায্য, যৌক্তিক ও প্রাণের দাবি এবং ভিসির পদত্যাগের মধ্য দিয়ে শিক্ষার্থীদের প্রাথমিক বিজয় অর্জিত হয়েছে।

বিকালে ভিসি নাসিরউদ্দিনের পদত্যাগের কথা জানতে পাড়ায় বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের জয় বাংলা চত্বরে জড়ো হয় উচ্ছ্বসিত শিক্ষার্থীরা।

সেখানে সংবাদ সম্মেলন করে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনকে (ইউজিসি) ধন্যবাদ জানান আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

তার পর সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের মুখপাত্র গণিত বিভাগের শিক্ষার্থী আল গালিব।

তিনি বলেন যে, আমরা আনন্দিত। ভিসি নাসির উদ্দিনের বিরুদ্ধে ওঠা অনিয়ম ও দুর্নীতির বিষয়ে আইনি ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করে প্রতিবেদন জমা দিয়েছে ইউজিসির পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি এবং আশা করছি ভিসির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, ভিসি নাসিরের পদত্যাগের দাবিতে শিক্ষার্থীদের টানা আন্দোলনের প্রেক্ষিতে ২৪ সেপ্টেম্বর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)।

এরপর অনিয়ম, দুর্নীতি, স্বেচ্ছাচারিতা ও নৈতিক স্খলনের দায়ে ভিসি নাসিরউদ্দিনকে প্রত্যাহারের সুপারিশ করে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) তদন্ত কমিটি।

পাশাপাশি তার বিরুদ্ধে ওঠা অনিয়ম এবং দুর্নীতির অভিযোগের বিষয়ে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণসহ তিনটি সুপারিশ করা হয়।

রোববার (২৯ সেপ্টেম্বর) ইউজিসির পাঁচ সদস্যের কমিটি প্রতিবেদনটি সংস্থার চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুল্লাহর কাছে জমা দেয়। তবে সেটি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ইউজিসি চেয়ারম্যান যুগান্তরকে জানিয়েছিলেন যে, আমরা একটা বস্তুনিষ্ঠ প্রতিবেদন করেছি এবং কমিটির সদস্যরা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৃত চিত্র তুলে আনার চেষ্টা করেছেন।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে রোববারের সেই তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ার পরদিনই পদত্যাগের আবেদন করেন ভিসি নাসিরউদ্দিন।

সোমবার (৩০ সেপ্টেম্বর) বিকালে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (বিশ্ববিদ্যালয়) মো. আবদুল্লাহ আল হাসান চৌধুরীর কাছে তিনি পদত্যাগপত্র জমা দেন। পরে ঐ পদত্যাগপত্র শিক্ষামন্ত্রীদের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

এখান থেকে শেয়ার দিন

Comments are closed.




© All rights reserved © 2019 agambarta24.com
Design BY NewsTheme